HomeUncategorizedএকটানা বৃষ্টিতে স্থবির বগুড়ার জনজীবন

একটানা বৃষ্টিতে স্থবির বগুড়ার জনজীবন

print news

মোঃ রাশেদঃ

বগুড়ায় দিনব্যাপী টানা বৃষ্টিতে জনজীবনে নেমে এসেছে স্থবিরতা। শহরের প্রায় বেশির ভাগ এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। দিনের বেলায় হেডলাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে জেলার বিভিন্ন সড়কগুলোতে। বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) দিনব্যাপী একটানা মুষলধারে এই ভারী বৃষ্টিপাত হয়। যা এখনও চলমান রয়েছে।

জানা গেছে, টানা বৃষ্টিতে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছেন ভ্যান-রিকশাচালক, হতদরিদ্র ও খেটে খাওয়া মানুষ। সকাল থেকেই জরুরি কোনো কাজ ছাড়া বাসার বাইরে বের হচ্ছেন না সাধারণ মানুষ।

বগুড়া শহরের সার্কিট হাউস মোড়ে অলস সময় পার করা রিকশাচালক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আজ সকাল থেকেই একটানা বৃষ্টি। এক মিনিটের জন্য বৃষ্টি থামতে দেখিনি। অন্যদিন বৃষ্টি হলেও শহরে মানুষের আনাগোনা থাকে। বৃষ্টির মধ্যেও মাথায় পলিথিন দিয়ে রিকশা চালিয়ে ভালোই ইনকাম হয়। কিন্তু আজ এতো বৃষ্টির মধ্যে মানুষ বাসা-বাড়ি থেকে তেমন একটা বের হয়নি। এক কথায় রিকশার যাত্রী কম। তাই ইনকামও কম হয়েছে।

বগুড়া সদর উপজেলার লাহিড়ীপাড়া ইউনিয়নের দিনমজুর মোজাম্মেল হক বলেন, সকাল থেকে অঝোর ধারায় বৃষ্টি ঝরছেই। অন্যের জমিতে দিনমজুরের কাজ করে সংসার চালাই। দিন আনি দিন খাই। স্ত্রী ও তিন ছেলে-মেয়ে নিয়ে আজ কী খাবো সেটাই ভাবছি। আজকের বৃষ্টি এ বছরের সবচেয়ে সেরা বৃষ্টি হয়েছে।

শহরের সাতমাথা এলাকার চা-বিক্রেতা রায়হান শেখ বলেন, আজ মনে হয় এ বছরের সবচেয়ে সেরা বৃষ্টি। এক মুহূর্তের জন্যও বৃষ্টি থামেনি। অন্যদিনের তুলনায় বেচাবিক্রি একেবারেই কম। সারা দিনের খরচই উঠবে না।

এদিকে সকাল থেকে শুরু হওয়া টানা বৃষ্টিতে ভোগান্তিতে পড়েন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী, অফিসে যাওয়া মানুষ এবং খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষেরা। স্কুল ও অফিস ছুটির পর যানবাহনের স্বল্পতার কারণে অনেককেই বৃষ্টিতে ভিজে বাড়ি ফিরতে দেখা গেছে। এসব কারণে বেশিরভাগ স্কুলে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল একেবারেই কম।

জেলা আবহাওয়া অফিস সূত্র জানান, বুধবার ভোর থেকেই বগুড়ায় অবিরাম বৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ৩৪ দশমিক ৮ মিলিমিটার। তবে আগামী দু-তিন দিনের মধ্যে এই বৃষ্টির প্রভাব কমে আসতে পারে। বৃষ্টিপাতের কারণে তাপমাত্রা কমলেও বৃষ্টিপাত কমে গেলে তাপমাত্রা বাড়বে বলেও জানিয়েছেন এই সূত্রটি।।

এই বিভাগের আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ

দশ জনপ্রিয় সংবাদ