Homeসারাদেশটিসিবির পণ্য: তিন দিন ঘুরিয়ে চেয়ারম্যান বললেন, সরকার দেয়নি চলে যান

টিসিবির পণ্য: তিন দিন ঘুরিয়ে চেয়ারম্যান বললেন, সরকার দেয়নি চলে যান

print news

মোঃ রাশেদঃ

একের পর এক নানা অনিয়ম আর বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকায় সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার থেতরাই ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা। এবার তার বিরুদ্ধে টিসিবির পণ্য আত্মসাতের অভিযোগ করেছেন টিসিবি কার্ডধারীরা।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সাময়িক বরখাস্ত হওয়া থেতরাই ইউপি চেয়ারমান আতাউর রহমান আতা ও টিসিবির ডিলার হয়রত শাহ্ জালাল ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী আবু সায়েম যোগসাজসে ওই ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় সহস্রাধিক কার্ডধারীর টিসিবির পণ্য আত্মসাত করেছেন। এমন অভিযোগে ২৭ জন সুবিধাভোগী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন।

জানা গেছে, প্রতি কার্ডধারী ৪৭০ টাকা দরে প্রতি প্যাকেজে দুই লিটার সয়াবিন তেল, পাঁচ কেজি চাল ও দুই কেজি মসুর ডাল কিনতে পারবেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, থেতরাই ইউনিয়ন পরিষদের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কার্ডধারী সুবিধাভোগীদের মাঝে ২৫ সেপ্টেম্বর পরিষদ চত্বরে টিসিবির পণ্য বিতরণ করার জন্য সকলকে যথাসময়ে উপস্থিত থেকে পণ্য উত্তোলনের জন্য মাইকিং করা হয়। ২৫ সেপ্টেম্বর কার্ডধারী সুবিধাভোগীরা পণ্য নিতে পরিষদে গেলে চেয়ারম্যান বলেন, আজকের পরিবর্তে আগামীকাল ২৬ সেপ্টেম্বর পণ্য বিতরণ করা হবে। পরদিন ২৬ সেপ্টেম্বর কার্ডধারীগণ উপস্থিত হলে তিনি আবার বলেন ২৭ তারিখে বিতরণ হবে। এভাবে সুবিধাভোগীদের সঙ্গে টালবাহানা শুরু করেন ওই চেয়ারম্যান। পুনরায় ২৭ তারিখে সুবিধাভোগীরা পরিষদে টিসিবি পণ্য নিতে গেলে চেয়ারম্যান আতাউর রহমান বলেন, ওই তিন ওয়ার্ডের টিসিবি পণ্য সরকার দেয়নি। আপনারা চলে যান।

সুবিধাবঞ্চিত মনোয়ারা বেগম বলেন, ‘একটিপ মাল তোলার জন্য হামরা তিন দিন পরিষদে আসি ঘুরি আসছি। মালতো পাইয়ে না অথচ অটো ভাড়া ফাও গেলো।’

একইকথা বলেন নুরভানু, মুসলীম, মকবুল, মহসীন, রাশেদা, রনজিনা, রবিনা বেগম, রেনু বেগমসহ অনেকেই।

থেতরাই ইউনিয়নের টিসিবির ডিলার হয়রত শাহ্ জালাল ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী আবু সায়েম বলেন, ওই ইউনিয়ন পরিষদের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সব মাল বিতরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সাময়িক বরখাস্ত হওয়া ইউপি চেয়ারমান আতাউর রহমান আতা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, টিসিবি পণ্য সবাই পেয়েছে। অনুপস্থিত থাকায় হয়তো সাত-আট জন পায়নি।

উলিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাজী মাহমুদুর রহমান বলেন, নতুন ইউএনও স্যার যোগদান করে ছুটিতে গেছেন। ছুটি শেষে এসে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান ও টিসিবির ডিলারের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগটি খতিয়ে দেখবেন।।

এই বিভাগের আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ

দশ জনপ্রিয় সংবাদ