HomeUncategorizedদর্শনায় পথ অবরোধ করে ভ্যানচালককে মারপিটের অভিযোগ

দর্শনায় পথ অবরোধ করে ভ্যানচালককে মারপিটের অভিযোগ

print news

প্রতিবেদক, কুড়ুলগাছি:
দর্শনার বড়বলদিয়ায় পথ অবরোধ করে এক ভ্যানচালককে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার দিকে পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের বড়বলদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার ভ্যানচালক আতিয়ার রহমান কুড়ুলগাছি পশ্চিম পাড়ার কাতববারী মন্ডলের ছেলে।
স্থানীয়রা জানান, আতিয়ার রহমান কুড়ুলগাছি বাজার থেকে বিকেল চারটার দিকে একজন নারী যাত্রীকে নিয়ে পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের ছোট বলদিয়া গ্রামে যাচ্ছিল। তিনি বড়বলদিয়া গ্রামে পৌঁছালে গ্রামের রহমত আলীর ছেলে হারুন ভ্যানচালকের সামনে এসে দাঁড়িয়ে রাস্তা অবরোধ করে থামতে বলেন। এসময় আতিয়ার তার কথা না শোনায় হারুন ক্ষিপ্ত হয়ে বাঁশের লাঠি দিয়ে তাকে মারপিট করে পালিয়ে যান।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ভ্যানচালক আতিয়ার রহমান বলেন, ‘আমি বিকেলের দিকে কুড়ুলগাছি বাজার থেকে একজন নারী যাত্রীকে নিয়ে ছোট বলদিয়া যাচ্ছিলাম। আমি বড়বলদিয়া মাদ্রাসা মোড়ে পৌঁছালে হারুন আমার পথ আটকিয়ে আমাকে ভ্যান থামাতে বলেন। এসময় ভ্যানের যাত্রী থামতে নিষেধ করায় আমি ভ্যান না থামিয়ে চলতে থাকি। এসময় সে আমার পিছু নেয়। বড়বলদিয়া গ্রামের ভেতরে পৌঁছানোর পর আমার ভ্যানের গতিরোধ করে আমাকে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি মারপিট করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায়।’
এ ব্যাপারে ভ্যানের যাত্রী হাওয়া খাতুন বলেন, ‘হারুন আমার ভ্যানে ওঠার জন্য ভ্যানচালককে দাঁড়াতে বললে আমি তাকে ভ্যানে তুলতে নিষেধ করি। এ কারণে হারুন ভ্যানচালকের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ভ্যানের গতিরোধ করে তাকে মারধর করে। এখানে ভ্যানচালকের কোনো দোষ নেই।’
হারুন বলেন, ‘ভ্যানের যাত্রী হাওয়া খাতুনকে আমি টাকা ধার দিয়েছি। সেই টাকা আজকে দেওয়ার কথা ছিল। আমি তার কাছে টাকা নেওয়ার জন্য ভ্যানচালককে থামতে বলি। সে আমার কথা শোনেনি এ কারণে আমি তাকে মেরেছি।’

এই বিভাগের আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ

দশ জনপ্রিয় সংবাদ