HomeUncategorizedপাঁচবিবিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সোর্স পেটালেন মাইক্রোবাসের দুই যাত্রীকে

পাঁচবিবিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সোর্স পেটালেন মাইক্রোবাসের দুই যাত্রীকে

print news

মোস্তাকিন হোসেন,পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) সংবাদদাতাঃ
জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা চেকপোস্ট বসিয়ে মাদকদ্রব্য উদ্ধার অভিযান পরিচালনাকালে সৌরভ (২৮) ও সাব্বির হোসেন (২৮) নামে মাইক্রোবাসের দুই যাত্রীকে বেধড়ক মারপিটের অভিযোগ উঠেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের দুই সোর্সের বিরুদ্ধে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার শিমুলতলী এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে জয়পুরহাট-হিলি সড়কের শিমুলতলী এলাকায় জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক মাহবুবর রহমানের নেতৃত্বে চেকপোস্ট বসিয়ে মাদকদ্রব্য উদ্ধারের তল্লাশী চালানো হয়। এসময় পাঁচবিবি থেকে জয়পুরহাটগামী একটি মাইক্রোবাসে পাঁচবিবি পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি সোহানুর রহমান সুরুজ ও তার দুই সহযোগী সৌরভ (২৮) ও সাব্বির হোসেন (২৮) গাড়ীতে বসে নিজেদের গন্তব্যে যাচ্ছিলেন। পরে তারা শিমুলতলী এলাকায় পৌঁছালে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা মাইক্রোবাসটি থামানোর জন্য সংকেত দেন। তাৎক্ষণিক গাড়ীটি না থামিয়ে একটু অদূরে থামিয়ে গাড়ী থেকে বের হতেই কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই দুই সোর্স সৌরভ (২৮) ও সাব্বির হোসেন(২৮) কে বেধড়ক মারপিট করতে শুরু করে।এরপর উভয় পক্ষে মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হলে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে জনগণের তোপের মুখে পড়েন জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা। এক পর্যায়ে তাদেরকে পাঁচবিবি গোহাটির ঐতিহ্য হোটেলে তাদের অবরদ্ধ করে রাখেন স্থানীয় জনসাধারণ। পরবর্তীতে খবর পেয়ে পাঁচবিবি থানা পুলিশের সহযোগিতায় উভয় পক্ষের লোকজনের সমঝোতার ভিত্তিতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা।
পাঁচবিবি থানার (এস আই) আব্দুল করিম,( এ এস আই) রইচ উদ্দিন, রবিউল ইসলাম, পৌর কাউন্সিলর মামুন ফকির, সাবেক কাউন্সিলর আঃ হান্নান রনিসহ অন্যান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

জয়পুরহাট জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রফিকুল ইসলাম জানান,শিমুলতলী এলাকায় জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা তল্লাশী চলাকালে একটি মাইক্রোবাসকে সংকেত দিলে তারা সেটি অমান্য করে। পরে তাদের ধাওয়া করে আটকায়। একসময় তাদের সঙ্গে আমাদের অনাকাঙ্ক্ষিত ভূল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়।পরবর্তীতে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে আপোস মিংসার মাধ্যমে ঘটনার সমাধান করা হয়।

এই বিভাগের আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ

দশ জনপ্রিয় সংবাদ