HomeUncategorizedহাকিমপুরে ফসলি জমি থেকে মর্জিনা বেগম নামে এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার

হাকিমপুরে ফসলি জমি থেকে মর্জিনা বেগম নামে এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার

print news

দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার আলিহাট ইউনিয়নে ফাঁকা ধানের জমি থেকে মর্জিনা বেগম (৪৮) নামে এক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মহিলার লাশ উদ্ধার করেছে হাকিমপুর থানা পুলিশ।

শনিবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরের উপজেলার আলিহাট ইউনিয়নে ধাওয়ানশীপুর গ্রামের ঈদগাহ মাঠের পশ্চিম পাশের ফাঁকা ধানের জমি থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে ঈদগাহ মাঠের পাশে ফাঁকা ধানের জমিতে মৃত অবস্থায় দেখতে পায় কোকতাড়া স্কুলে প্রাইভেট পড়তে যাওয়া শিক্ষার্থীরা। বিষয়টি এলাকায় আলোড়ন সৃষ্টি করে। এরপর এলাকার লোকজন ও মৃত মহিলার সাবেক স্বামী উপস্থিত হয়ে তাকে সনাক্ত করেন। পরে পুলিশকে খবর দিলে থানা পুলিশ পিআইবি পুলিশের সদস্য এসে প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

নিহত মহিলা একই ইউনিয়নের কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের ফুল মিয়ার সাবেক স্ত্রী। প্রায় এক বছর আগে স্বামী তালাক দেওয়ায় গোবিন্দগঞ্জ থানার বানিয়াল গ্রামে বাবার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন।

নিহতের সাবেক স্বামী ফুল মিয়া বলেন, আমি গরীব মানুষ। আদর্শ গ্রামে সরকারি ভাবে একটি বাড়ি পেয়েছি। সেখানে আমরা দুই জন বসবাস করতাম। গত এক বছর আগে আমার স্ত্রী মর্জিনা বেগম আমাকে তালাক দেয়। এরপর আমি ঢাকা শহরে চলে যাই। সে তার বাবার বাড়িতে থাকে। গতকাল আমি বাড়িতে চলে আসলে খবর পেয়ে সেও চলে আসে। পরে আমি তাকে বাধা দিলে সে বলে চেয়ারম্যান মেম্বার ডেকে এনে আবারও সে সংসার করবে। এ কথা বলে সে চলে আজ সকালে রতন চৌকিদার ফোন দিয়ে বলে তোর বউ মরে পড়ে আছে। এসে দেখি ঘটনা সত্য। সে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছিলো এবং তার প্রতিবন্ধী কার্ড আছে।

আলিহাট ইউনিয়নে ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাখাওয়াত হোসেন বলেন, সকাল বেলা খবর পেয়ে ঘটনা স্হলে এসে দেখি নিহতের লাশ ফাঁকা ধানের জমিতে পড়ে আছে। সে আমার ওয়ার্ডের কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের ফুল মিয়ার স্ত্রী। তারা গুচ্ছ গ্রামে থাকতো। নিহতের স্বামী ও প্রতিবন্ধী এবং তার স্ত্রী দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। শুনলাম এক বছর আগে ছাড়াছাড়ি হয়েছে। পরে ওসিকে ফোন দিলে থানা পুলিশ এসে নিহতের লাশ নিয়ে যায়।

হাকিমপুর ঘোড়াঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার এএসপি শরিফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সকালে স্থানীয়দের ফোনের মাধ্যমে জানতে পেরে থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি দুলাল হোসেন, তদন্ত ওসি জাহাঙ্গীর আলমসহ পুলিশ এর চৌকস দল আলীহাট ইউনিয়নের ধাওয়ানশিপুর গ্রামের ঈদগাহ মাঠের পাশে ফাঁকা ধানের জমিতে থেকে মর্জিনা নামের এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে ঘটনা স্হলে পুলিশের পিআইবি সদস্য চলে আসে। নিহত মর্জিনার আলীহাট ইউনিয়নের কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের ফুল মিয়া নামের এক ব্যক্তির সাথে বিয়ে হয়েছিলো এবং এক বছর আগে তাদের দুজনের তালাক হয়। আজ সকালে নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
তিনি আরো জানান, প্রাথমিক অবস্থায় নিহতের শরীর কোন চিহ্ন বা দাগ পাওয়া যায়নি। কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। তবে রহস্য উদঘাটনের জন্য পুলিশ নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। লাশের ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর আসল রহস্য যানা যাবে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

এই বিভাগের আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ

দশ জনপ্রিয় সংবাদ