Homeসারাদেশদিনাজপুরহাকিমপুরে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগে আদালতে মামলা

হাকিমপুরে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগে আদালতে মামলা

print news

দিনাজপুরের হাকিমপুর হিলি উপজেলার আলিহাট ইউনিয়নের কোকতাড়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন ও সভাপতির নির্বাচনে অনিয়ম ও প্রধান শিক্ষকের স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (০১ এপ্রিল) দুপুরে বিজ্ঞ হাকিমপুর সহকারী জজ আদালত দিনাজপুরে বিদ্যালয়ের নতুন ম্যানেজিং কমিটি গঠন ও সভাপতির নির্বাচনে অনিয়ম ও প্রধান শিক্ষকের স্বেচ্ছা চারিতার আভিযোগে মামলা দায়ের করেন অত্র বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আজিজার রহমান।

আদালতে লিখিত অভিযোগে প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আজিজার রহমান বলেন, ১৯৭৩ সালে স্কুল প্রতিষ্ঠা লাভের পরে আমি প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে ম্যানেজিং কমিটিতে আছি। এবার সম্প্রতি ২০২৪ সালের স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে প্রধান শিক্ষক রতন কুমার সরকার নিজের ক্ষমতার অপবপ খাটিয়ে আমাকে বাদ দিয়ে নবগঠিত কমিটি তৈরি ও কমিটির সভাপতি নির্বাচন করেন। এবিষয়ে আমাকে কিছু জানতে দেওয়া হয়নি।

তিনি আরও অভিযোগ করেন নবগঠিত কমিটিতে ছানোয়ার হোসেনকে অভিভাবক সদস্য নির্বাচিত করা হয়েছে। কিন্তু স্কুলের ভোটার তালিকায় ছানোয়ার হোসেন নামে কোন অভিভাবক সদস্য খুঁজে পাওয়া যায়নি। এছাড়াও চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ না করা, চূড়ান্ত ভোটার তালিকা ত্রুটিযুক্ত, বিধি মোতাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্কুলের কমিটির নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগ না দেওয়া, কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার ছয় মাস পূর্বে দাতা সদস্যর নোটিশ না দেওয়া সহ প্রধান শিক্ষককের স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার ও কমিটির নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার, স্কুলের প্রধান, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, জেলা অফিসার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, চেয়ারম্যান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দিনাজপুর এবং বিদ্যালয় পরিদর্শক মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দিনাজপুর এদের নামে মামলা দায়ের করেন।

এবিষয়ে কোকতাড়া দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয় এর বর্তমান সভাপতি সুমন মন্ডল জানান, আমি চলতি মাসের ১২ তারিখ পর্যন্ত স্কুলের সভাপতির দ্বায়িত্বে আছি। কিন্তু স্কুলের প্রধান শিক্ষক আমাকে না জানিয়ে হঠাৎ করে প্রতিষ্ঠাতা সদস্যকে বাদ দেওয়া সহ বেশ কিছু অনিয়ম করে নতুন কমিটি গঠন করেন। এখন শুনতেছি আমাকেও আসামি করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, নিজ প্রতিষ্ঠানে অর্থ কেলেঙ্কারি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে গত ২৪ মার্চ ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক প্রধান শিক্ষক রতন কুমারকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে এবং সিনিয়র সহকারী শিক্ষক নওশাদ আলী কে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এর দ্বায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হয়। এরপরও সাময়িক বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক রতন কুমার গত ৩০ মার্চ গোপনে নতুন কমিটি অনুমোদনের জন্য চেয়ারম্যান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দিনাজপুরের বরাবর অনলাইনে আবেদন করেন। এটা কিভাবে সাময়িক বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক করতে পারেন আমি বুঝে উঠতে পারছি না। ভাবতেছি আমি ও তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবো।

এই বিভাগের আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ

দশ জনপ্রিয় সংবাদ